২৪শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বিতর্কের মুখে ফেসবুক ছাড়লেন আঁখি দাস

অনলাইন ডেস্ক: চরম বিতর্কের মুখে পড়ে ফেসবুক ছাড়লেন প্রতিষ্ঠানটির ভারতীয় শীর্ষ লবিস্ট আঁখি দাস। ফেসবুকের বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ তুলেছিল বিরোধীরা। তার মাস কয়েক পরই এমন সিদ্ধান্ত নিলেন আঁখি। গতকাল মঙ্গলবার ফেসবুকের পক্ষ থেকে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক বিবৃতিতে বলা হয়, ফেসবুকের রাজনৈতিক বিষয়বস্তু নিয়ন্ত্রণ বিষয়ে বিতর্ক ছড়িয়ে পড়ার কয়েক মাস পরে পদত্যাগ করেছেন আঁখি দাস। ফেসবুকের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, জনসেবামূলক কাজের সঙ্গে যুক্ত থাকতে পদত্যাগ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।

সম্প্রতি ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) নেতাদের ঘৃণ্য বক্তব্যকে উপেক্ষা করার অভিযোগ ওঠে ফেসবুকের বিরুদ্ধে। এ নিয়ে আঁখির কঠোর সমালোচনা হয়। এ নিয়ে ওয়ালস্ট্রিট জার্নাল একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে।

ওয়ালস্ট্রিট জার্নাল এক প্রতিবেদনে জানায়, ভারতে ফেসবুকের একজন শীর্ষ নির্বাহী কর্মকর্তা বিজেপি নেতাদের বিদ্বেষমূলক ঘৃণ্য মন্তব্য মুছতে অস্বীকার করেন। এতে ফেসবুকের ব্যবসায়িক স্বার্থ নষ্ট হবে বলে তিনি এসব পোস্টের পক্ষে অবস্থান নেন। তিনি ফেসবুকের ভারতের পাবলিক পলিসি এক্সিকিউটিভ হিসেবে কাজ করেন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে বলা হচ্ছে, ভারতের মতো বড় বাজারকে কবজায় রাখতে গিয়ে কেন্দ্রের শাসক দল বিজেপির ক্ষেত্রে পক্ষপাতের অভিযোগ ওঠে ফেসবুকের বিরুদ্ধে। আঁখি দাসের বিরুদ্ধে মামলাও হয়। ধর্মীয় বিদ্বেষ ছড়ানো ও উসকানির অভিযোগ ওঠে তাঁর বিরুদ্ধে।

ওয়ালস্ট্রিট জার্নালের ওই প্রতিবেদনের পরে ফেসবুক ইন্ডিয়ার প্রধান অজিত মোহন আঁখি দাসের পক্ষে দাঁড়ান। তিনি ফেসবুক নীতিমালার পক্ষেও তাঁর অবস্থান তুলে ধরেন। ফেসবুকের অভ্যন্তরীণ কমিউনিটি পোস্টে এ নীতিমালার পক্ষে লেখেন অজিত। বার্তা সংস্থা রয়টার্স ওই পোস্ট দেখেছে।

মোহন লিখেছেন, ‘নিবন্ধটি আমরা প্রতিদিন যে জটিল সমস্যার মুখোমুখি হই, তা প্রতিফলিত করে না। এ ক্ষেত্রে আঁখি এবং পাবলিক পলিসি টিমের দক্ষতার দ্বারা উপকৃত হয়েছে ফেসবুক।’

বিষয়টি ফেসবুক কর্মীদের ভারতে যথাযথ কনটেন্ট নিয়ন্ত্রণের নীতি অনুসরণ করা হচ্ছে কি না, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে উৎসাহ দেয়। এতে ফেসবুক জনসংযোগ ও রাজনৈতিক সমস্যার মুখে পড়ে।

রয়টার্স জানিয়েছে, আঁখি দাসকে ফেসবুকের ভারতীয় করপোরেট লবিংয়ের প্রভাবশালী কর্মকর্তা হিসেবে বিবেচনা করা হয়। ২০১১ সালে ফেসবুকে যুক্ত হওয়ার পর থেকে তিনি ভারতে ফেসবুক উত্থানের কেন্দ্রে ছিলেন।

ফেসবুকের পক্ষ থেকে বলা হয়, গত নয় বছরে ফেসবুকে আঁখি দাসের বিশেষ অবদান রয়েছে। তিনি ভারতের ফেসবুকের প্রথম দিকের কর্মী বলেও জানিয়েছেন অজিত মোহন।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email
Share on print
Print
ফেসবুক