২৮শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

পিটিয়ে যুবকের সাতটি দাঁত ভেঙে দিলো হাওলাদার পরিবার

অনলাইন ডেস্ক: পিরোজপুরের ইন্দুরকানী উপজেলায় রাসেল হাওলাদার (২৪) নামের এক যুবককে পিটিয়ে সাতটি দাঁত ভেঙে দিয়েছে প্রতিপক্ষরা। ভুক্তভোগী রাসেল উপজেলার সেউতিবাড়ীয়া গ্রামের আবুল কালামের ছেলে।

জানা যায়, গতকাল বৃহস্পতিবার নিজ বাড়ি থেকে শ্বশুরবাড়িতে যাওয়ার জন্য রওনা করেন রাসেল। পথিমধ্যে ওঁৎ পেতে থাকা একই গ্রামের নজরুল হাওলাদারের তিন ছেলে শাহিন হাওলাদার (৩০), শহিদ হাওলাদার (২২), ফরিদ হাওলাদার (২০), হামেদের ছেলে আবু তালেব (৫০), হরমুজ আলীর ছেলে রুহুল হাওলাদারসহ দেশীয় অস্ত্র ও লাঠি দিয়ে রাসেল ওপর অর্তকিতভাবে হামলা করেন। এ সময় তারা রাসেলের মাথায় ও ঘাড়ে কোপ দেন এবং উভয় চোয়ালের সাতটি দাঁত ভেঙে দেন।

প্রত্যক্ষদর্শী হাফিজুল বলেন, ‘আমি রাসেলের চিৎকার শুনে দৌড়ে গিয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় তার মাথায় ও ঘাড়ে কোপ ও কয়েকটি দাঁত পড়ে থাকতে দেখি।’

রাসেলের বাবা আবুল কালাম বলেন, ‘খবর পেয়ে ছেলেকে উদ্ধার করে প্রথমে পিরোজপুর সদর হাসপাতাল নিয়ে গেলে সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসি। ওরা মোর পোলার সাতটি দাঁত ভাইঙা দেছে এবং মাথায় ও ঘাড়ে দাও দিয়া কোপ দেছে। লোকজন না আসলে মোর পোলারে মাইরা ফেলত।’

এ বিষয়ে নজরুল হাওলাদারের ছেলে শহীদ হাওলাদার বলেন, ‘রাসেলের কাছে আমরা টাকা পেতাম। ওই টাকা চাইলে সে অস্বীকার করে। পরে একপর্যায়ে তার সঙ্গে হাতাহাতি হয়।‘

ইন্দুরকানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হুমায়ুন কবির বলেন, ‘খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আহত রাসেলকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠায়। আমরা এখনো এ বিষয়ে অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেবো।’

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email
Share on print
Print
ফেসবুক