১১ই জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২৭শে পৌষ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

আলু চাষে ব্যস্ত কৃষকরা: ভালো দাম পাওয়ার আশা

নন্দীগ্রাম থেকে মো: মামুন আহমেদ: ভালো দামের আশায় নন্দীগ্রাম উপজেলার বিভিন্ন মাঠে উৎপাদনশীল জাতের আলু বীজ বপনে ব্যস্ত সময় পার করছে কৃষকরা।

বাজারে আলুর দাম চড়া তাই মৌসুমের প্রথম দিকে আগাম উৎপাদনশীল জাতের আলু উৎপন্ন হলে ভালো দাম পাওয়া যাবে এমনটাই আশা করছেন কৃষকরা।

জানা গেছে, উপজেলার রিধইল, কাথম, দোহার, বিরপলি, নামুইট, সিধইল সহ বিভিন্ন এলাকায় বিনা-৭ ও ৪৯ নামে আগাম জাতের আমন ধান লাগানো হয়েছিল। ইতিমধ্যে এসব আগাম জাতের আমন ধান ঘরে তুলেছেন কৃষক।

এখন সেসব জমিতে চলছে আগাম আলু লাগানোর কাজ। এ জন্য জমি তৈরীসহ সার প্রয়োগে ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষকরা। ডায়মন্ড, পাকরি, কাজললতা,ও কার্ডিলাল সহ দেশি ও উন্নত জাতের আলু লাগানো হচ্ছে।

ডায়মন্ড জাতের আলু ৭০/৮০ দিনের মধ্যে বাজার জাত করা সম্ভব বলে জানিয়েছেন কৃষি বিভাগের কর্মকর্তা ও কৃষকরা। উপজেলা কৃষি অফিস জানায়, এবার নন্দীগ্রাম উপজেলায় চলতি মৌসুমে আলু চাষের লক্ষমাত্রা ধরা হয়েছে চার হাজার ৫০০ হেক্টর জমিতে।

তবে ধারনা করা হচ্ছে, উপজেলায় চলতি মৌসুমে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি জমিতে আলু চাষ হবে। ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে আগাম জাতের আলুবীজ বপন। এ চাষ চলবে আগামী জানুয়ারি মাস প্রর্যন্ত।

চলতি মৌসুমে উচ্চ ফলন প্রাপ্তির লক্ষ্যে কৃষকদের মধ্যে আলু ও সবজি চাষের উপর বিভিন্ন প্রশিক্ষণসহ উন্নতমানের বীজ সংগ্রহ, সুষম মাত্রার রাসায়নিক ও জৈবসার প্রয়োগের পরামর্শ দিয়েছে কৃষি বিভাগ।

রিধইল গ্রামের কৃষক আকবর আলী বলেন, উপজেলার মাটি আলু চাষের জন্য উপযোগী হওয়ায় অধিকাংশ কৃষক অন্যান্য ফসলের চেয়ে আলু চাষে বেশি আগ্রহী।

তিনি বলেন, গতবার ধান কাটার পরেই আগাম আলু চাষ করে অর্ধেক লাভ হয়েছে। সেই জন্য এবার চার বিঘা জমিতে আগাম ডায়মন্ড জাতের আলু লাগাইছি।

নন্দীগ্রাম উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আদনান বাবু বলেন, এখন যে জমিতে কৃষকরা আলু লাগাচ্ছেন, তা ৭০-৮০ দিনের মধ্যে তুলে বাজারে বিক্রি করতে পারবেন।

মৌসুমের শুরুতে নতুন আলুর চাহিদা থাকায় এমনিতেই বাজারে দাম চড়া থাকে। তাই কৃষকরা আগাম আলু চাষে ঝুঁকে পড়েছেন। মাঠপর্যায়ে কৃষকদের পরমর্শ প্রদানে আমরা সবসময় তৎপর রয়েিেছ।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email
Share on print
Print
ফেসবুক