১৩ই জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২৯শে পৌষ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

জাতীয় পার্টি সরকারের অক্সিজেন-শেরিফা কাদের

শাহজাহান আলী মনন, সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি ॥ নীলফামারীর সৈয়দপুর পৌরসভার নির্বাচনে লাঙ্গল মার্কার প্রার্থীর সুপরিকল্পিত প্র“তিশ্র“তির আলোকে মার্জিত ও শান্তিপূর্ণ প্রচারণায় মুগ্ধ হয়ে এবং সৈয়দপুরের দীর্ঘ দিনের সমস্যা সমাধানে তাঁকে যোগ্য অভিভাবক হিসেবে নির্বাচিত করতে ক্রমেই সর্বস্তরের ভোটারদের মধ্যে সরব আলোড়ন সৃষ্টি হওয়ায় প্রতিপক্ষরা নানামুখী ষড়যন্ত্র শুরু করেছে।

শোনা যাচ্ছে সরকার দলীয় প্রার্থীর পক্ষের লোকজন জাপা প্রার্থীর লোকজনকে বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি দেখাচ্ছে। প্রচারণায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা সহ সভা সমাবেশে মিথ্যে অভিযোগ করে গালমন্দ করার ঘটনাও ঘটেছে। এতে সাধারণ জনগণের মাঝে ভোট কারচুপির আশংকা দেখা দিয়েছে। এমতাবস্থায় আমরা সকলকে সতর্ক করে বলতে চাই নৌকার প্রার্থীকে বিজয়ী করতে কোন প্রকার ভোট কারচুপির চেষ্টা করা হলে জাতীয় পার্টি তার উচিৎ জবাব দিবে।

উপরোক্ত কথা বলেছেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডেন্ট জিএম কাদেরের সহধর্মীনি ও পার্টির প্রেডিয়াম সদস্য এবং সাস্কৃতিক পার্টির আহবায়ক মিসেস শেরিফা কাদের। তিনি ১২ জানুয়ারী রাত ৯ টায় সৈয়দপুর শহরের প্রধান সড়ক শহীদ ডাঃ জিকরুল হক রোডস্থ মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সের সামনে লাঙ্গল মার্কার সমর্থনে আয়োজিত পথসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যকালে এসব কথা বলেন।

এময় আরও উপস্থিত ছিলেন প্রেসিডিয়াম সদস্য যুগ্ম মহাসচিব (সিলেট বিভাগ) এ টি ইউ তাজ রহমান, জাপার প্রেসিডিয়াম সদস্য এ্যাড. রেজাউল ইসলাম ভুইয়া, প্রেসিডিয়াম সদস্য আলমগীর সিকদার লোটন, যুগ্ম মহাসচিব ফখরুল আহসান শাহজাদা, ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক ফয়সাল দিদার দিপু,

কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য রাকিব খান, জেলা যুব সংহতির আহ্বায়ক রওশন মাহানামা, সৈয়দপুর উপজেলা কমিটির আহ্বায়ক আলহাজ্ব জয়নাল আবেদীন, সৈয়দপুর পৌর জাপার সাধারণ সম্পাদক আলতাফ হোসেন এবং সৈয়দপুর পৌরসভা নির্বাচনে জাপার মেয়র প্রার্থী শিল্পপতি ও ইকু গ্রপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলহাজ্ব সিদ্দিকুল আলম সিদ্দিক।

এমসময় বক্তারা আরও বলেন, আওয়ামীলীগের নেতৃবর্গকে মনে রাখতে হবে যে, জাতীয় পার্টি সরকারের জন্য অক্সিজেন। তাই এক্ষেত্রে চিন্তা ভাবনা করে কথা বলতে হবে। নচেৎ কেন্দ্রীয়ভাবে সিদ্ধান্ত নিয়ে সরকারের বিরুদ্ধে অবস্থান নিতে বাধ্য হবো আমরা। সৈয়দপুরের উন্নয়নের জন্য লাঙ্গলে একটি করে ভোট দিয়েও আপনারা এর জবাব দিতে পারবেন। এই নিরব বিপ্লবই হবে প্রতিপক্ষের জন্য সমুচিত জবাব। যার মাধ্যমে যেমন সৈয়দপুরকে মেয়র ও এমপি মিলে সর্বাত্মক উন্নয়নে সাজাতে পারবে, তেমনিভাবে জাতীয় পার্টির হাতও শক্তিশালী হবে। আমরা জানি সৈয়দপুর তথা রংপুর বিভাগ এরশাদের এলাকা। এ এলাকার লোকজন এরশাদের জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থীকেই তাদের জনপ্রতিনিধি হিসেবে বেছে নিবে ইনশা আল্লাহ।

ইতোমধ্যে এর প্রতিফলনও শুরু হয়ে গেছে। তাইতো প্রতিপক্ষের মাথা খারাপ হয়ে গেছে। একারণে তারা উল্টাপাল্টা বক্তব্য দিয়ে এবং প্রচারণায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে পরিস্থিতি ঘোলাটে করার চেষ্টা করছে। যা তাদের জন্য হিতে বিপরিত হবে বলেই আমরা মনে করি। সর্বোপরি লাঙ্গল মার্কায় ভোট দিয়ে নিজেদের ভাগ্য পরিবর্তনে আপনাদের সুচিন্তিত মতামত প্রত্যাশা করেই ১৬ জানুয়ারী বিজয়ের মালা সিদ্দিকুল আলম সিদ্দিককে পরিয়ে দিয়ে তারপর আমরা ফিরতে চাই।

উল্লেখ্য, এ পথসভায় প্রধান অতিথি শেরিফা কাদের বক্তব্য শুরুর পরেই সৈয়দপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট রমিজ আলম উপস্থিত হয়ে নির্বাচনী আচরণ বিধি ভঙ্গের অভিযোগে সভা বন্ধ করতে বলেন। এতে উপস্থিত জনগণ ক্ষোভে ফেটে পড়লে প্রধান অতিথির বক্তব্য শেষ করেই সভার সমাপ্তি করার নির্দেশ দেয়। উপস্থিত নেতৃবৃন্দ এটাকে প্রতিপক্ষের চাপে প্রশাসনের পক্ষপাতমুলক আচরণ বলে দাবি করেন।

কারণ নৌকার সমর্থনে রাত ২ টা পর্যন্তও সভা করা হয়েছে। কিন্তু তাতে প্রশাসন কোন বাধা দেয়নি। তাঁরা জনগণকে সচেতন থেকে নির্বাচন পর্যন্ত শান্তিপূর্ণভাবে অবস্থানের অনুরোধ জানিয়ে বলেন আমাদের বিজয় সুনিশ্চিত।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email
Share on print
Print
ফেসবুক