১৩ই জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২৯শে পৌষ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

পর্নোগ্রাফি-টয়-ফ্যান্টাসির থাবায় ধ্বংসের হাতছানিতে তরুণ-তরুণীরা

অনলাইন ডেস্ক: টয়-পর্নোগ্রাফির সহজলভ্যতা তরুণ-তরুণীদের স্বাভাবিক বিকাশ ব্যাহত করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। অনেকেই ইন্টারনেটের সহজলভ্যতার সুযোগ নিয়ে পর্নোগ্রাফিতে আসক্ত হচ্ছেন বলে জানা গেছে।

জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের সহযোগী অধ্যাপক ডা. হেলাল উদ্দিন আহমেদ মনে করেন, ‘পর্নোগ্রাফিতে ফ্যান্টাসি রয়েছে, যা বিকৃত যৌনাচারকে উৎসাহিত করে। এসব ভিডিও স্বাভাবিক শারীরিক সম্পর্কের পরিবর্তে ফরেন বডি বা টয় ব্যবহারে মানুষকে আসক্ত করে। ফলে, অনেকেই অস্বাভাবিক আচরণ করে এবং নানা নানারকম স্বাস্থ্যঝুঁকির শিকার হয়।

কলাবাগানে এক ছাত্রীর অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে দুঃখজনক মৃত্যুর পর, তরুণদের শারীরিক সম্পর্কে জড়িয়ে পরার বিষয়টি আলোচনায় চলে আসে। ময়নাতদন্তকারী চিকিৎসকের বক্তব্য গণমাধ্যমে আসার পর দেশে পর্নোগ্রাফির সহজলভ্যতা ও স্বাভাবিক সম্পর্কের পরিবর্তে প্রাপ্তবয়স্কদের টয় বিক্রির বিষয়টিও সামনে চলে আসে।
অনেকেই বলছেন এসব টয় বিক্রির বিজ্ঞাপন তারা অনলাইনে দেখেছেন। মনোরোগ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বিকৃত যৌনাচারে আসক্ত অনেক রোগীই এখন চিকিৎসার জন্য তাদের কাছে যাচ্ছেন। যা থেকে তারা ধারণা করছেন, দেশে অস্বাভাবিক আচরণ বাড়ছে এবং ক্রমেই তরুণদের মাঝে বিস্তৃত হচ্ছে।

এই পরিস্থিতিতে পর্ণ সাইটগুলো বন্ধের দাবি জোরালো হচ্ছে। যদিও আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সাইবার ক্রাইম ইউনিট থেকে বলা হচ্ছে, পর্ণ সাইটগুলো বন্ধ করতে কার্যক্রম চলছে। অনেকগুলো সাইট এরই মধ্যে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

নীল জগতের হাতছানি থেকে বাঁচাতে, তরুণ-তরুণীদের নানা সৃজনশীল কাজে ব্যস্ত রাখার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। একই সঙ্গে অভিভাবকদের পরামর্শ দিয়েছেন সন্তানদের বন্ধু হওয়ার, পারিবারিক বন্ধন ও নৈতিকতার চর্চা বাড়িয়ে দেওয়ার।

একইভাবে মানুষের স্বাভাবিক প্রবণতা, নৈতিকতা ও সুস্থজীবন চর্চা বাড়াতে অনেকেই শারীরিক সম্পর্কের এডুকেশন সহজলভ্য করার তাগিদ দিচ্ছেন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আজকের তরুণ-তরুণীরা দেশের আগামী দিনের নীতি নির্ধারক। ফলে, তরুণদের সুস্থ্য ও নিরাপদ রাখার তাগিদ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email
Share on print
Print
ফেসবুক