৩রা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৯শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

১১ সন্তানের জনকের ধর্ষণের শিকার গৃহবধূ

ভোলার দৌলতখানে ১১ সন্তানের জনকের ধর্ষণের শিকার হয়েছেন চার সন্তানের জননী। এ ঘটনায় শনিবার সকালে দৌলতখান পৌর ২নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মহসিন মাঝির বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

ধর্ষণের শিকার ওই নারী বলেন, আমার স্বামী একজন রিকশাচালক। রোজগারের জন্য প্রতিদিন রিকশা চালিয়ে গভীর রাতে বাড়ি ফেরেন। দরজা আটকে রাতে ঘুমিয়ে পড়লে স্বামী এসে অনেক সময় আমার ঘুমের কারণে দরজায় দাঁড়িয়ে থেকে বিরক্ত হয়ে যান।

এজন্য দরজার সিটকিনি না আটকে চাপ দিয়ে রাখতে স্বামীর নির্দেশ ছিল। আর এ সুযোগ নিয়ে কয়েক দিন আগে রাত সাড়ে ১১টায় মৃত মোখলেছুর রহমানের ছেলে মহসিন মাঝি (১১ সন্তানের জনক) দরজা খুলে ঘরে ঢুকে আমার মুখ চেপে রান্নাঘরে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। যাওয়ার সময় সে এ ঘটনা কাউকে জানালে আমার সংসার ভেঙে দেওয়ার এমনকি জানে মেরে ফেলার হুমকিও দেয়।

আমি লোকলজ্জা ও সংসার ভেঙে যাওয়ার ভয়ে এ ঘটনা কাউকে জানাতে পারিনি। কিন্তু মহসিন মাঝির ছেলেমেয়েরাই এখন আমার বিরুদ্ধে চারিত্রিক কুৎসা রটাচ্ছে। শনিবার সকালে সাংবাদিকদের উপস্থিতি টের পেয়ে মহসিন মাঝি সটকে পড়লে তার বক্তব্য জানা যায়নি।

তার ছেলে আল আমিন জানান, তিনি বাংলাবাজার গিয়েছেন। এদিকে সাংবাদিকরা ওই স্থান ত্যাগ করার পর মহসিন মাঝির ছেলেমেয়েরা ভিকটিমকে হুমকি-ধমকি দিয়ে ভয়ভীতি প্রদর্শন করছে বলে সাংবাদিকদের জানানো হয়েছে।

এ ঘটনার পর শনিবার সকালে ভিকটিম বাদী হয়ে মহসিন মাঝিকে আসামি করে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। দৌলতখান থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) বশির আহমেদ অভিযোগ দায়েরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email
Share on print
Print
ফেসবুক