১৯শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৩রা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বরিশালে কলেজছাত্র হত্যায় মামলায় ২ জনের ফাঁসি, ৪ জনের যাবজ্জীবন

মো: ফিরোজ গাজী ‍॥ বরিশালের উজিরপুর উপজেলায় কলেজছাত্র সোহাগ সেরনিয়াবাত হত্যা মামলায় দু’জনকে ফাঁসি এবং চারজনের যাবজ্জীবন কারাদ- দিয়েছেন আদালত। গতকাল বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) সকালে বরিশালের জননিরাপত্তা বিঘ্নকারী অপরাধ দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক টি.এম মুসা এ রায় প্রদান দেন ।

ফাঁসি হওয়া দুই আসামী বরিশাল জেলার উজিরপুর থানাধীন ভিআইপি সড়ক এলাকার আবুল হাসেম হাওলাদারের ছেলে জিয়াউল হক লানন ও একই উপজেলার আটিপাড়া গ্রামের ইউনুস সরদারের ছেলে রিয়াদ সরদার। মৃত্যুদ-ের পাশাপাশি তাদেরকে ২০হাজার টাকা অর্থদন্ড করা হয়।

যাবজ্জীবনপ্রাপ্ত আসামীরা হলো একই গ্রামের আবুল কাসেম হাওলাদারের ছেলে ইমরান ও মামুন, রামা পাটানীর ছেলে বিপ্লব পাটানী ও আব্দুল হাই সরদারের ছেলে মো: ওয়াসিম সরদার। এই মাললা থেকে অপর ৯ আসামীকে বেকসুর খালাস প্রদান করেছেন বিচারক।

নথি সূত্রে জানা যায়, গত ২০১২ সনের ৮ নভেম্বর সকালে আসামীরা ১লক্ষ টাকা চাদার দাবিতে নিহত কলেজছাত্র সোহাগের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা-ভাংচুরসহ লুটপাট করে। এসময় সোহাগসহ আরিফ নামের অপর একজনকে পিটিয়ে জখম করে। এ ঘটনায় কলেজ ছাত্র সোহাগের বোন শাহানাজ পারভীন বাদী হয়ে উজিরপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা করার পর অসামীরা আরও বেপরোয়া হয়ে ওঠে এবং সোহাগকে হত্যার পরিকল্পনা করে।

এরই ধারাবাহিকতায় ২০১৪ সালের ৪ সেপ্টেম্বর রাত অনামানিক ৯ দিকে আসামীরা চাইনিজ কুড়াল দিয়ে সোহাগকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে। স্থানীয়রা সোহাগকে উদ্ধার করে উজিরপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে। এ ঘটনায় পরের দিন ৫ সেপ্টেম্বর নিহত সোহাগের মামা খোর্শেদ আলাম নান্টু ১৩ জনকে আসামী করে উজিরপুর থানায় একটি হত্যা মমলা দায়ের করে।

এ ঘটনায় ২০১৪ সনের ২২ নভেম্বর উজিরপুর থানার ওসি (ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা) শাহাবুদ্দিন আদালতে একটি চার্জশীট জমা দেন। আদালত ৩২ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে গতকাল এই রায় প্রদান করেন।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email
Share on print
Print
ফেসবুক